শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ১১:৩১ অপরাহ্ন

নিষেধাজ্ঞা শেষে মেঘনায় মাছ শিকারে নামছে জেলেরা

নিজস্ব প্রতিবেদক : ডিমওয়ালা মা ইলিশ রক্ষায় মেঘনা নদীতে সব ধরনের মাছধরার ওপর সরকারের ২২দিনের নিষেধাজ্ঞা শেষে আজ রাত ১২টা থেকে ফের মাছ শিকারে নামছে লক্ষ্মীপুরের কমলনগর ও রামগতি উপজেলার জেলেরা। দীর্ঘদিন পর মাছ শিকারের বাধা কেটে যাওয়ায় জেলে পরিবারগুলোতে এখন স্বস্তি ফিরে এসেছে। ইতোমধ্যে তারা নৌকা মেরামত ও জাল বোনাসহ মাছধরার প্রয়োজনীয় সকল প্রস্তুতি সেড়ে ফেলেছেন।
উপজেলা মৎস্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, ইলিশ মাছের প্রজনন অবাধ করার লক্ষে মৎস্য সংরক্ষণ আইন ১৯৫০ অনুযায়ী মৎস্য অধিদপ্তর মেঘনা নদীর চাঁদপুরের ষাটনল থেকে লক্ষ্মীপুরের চরআলেকজান্ডার পর্যন্ত ১০০ কিলোমিটার এলাকায় ১৪ অক্টোবর থেকে ৪ নভেম্বর পর্যন্ত সব ধরনের মাছধরার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে। এ সময় ইলিশ ক্রয়-বিক্রয়, পরিবহন এবং মজুদও নিষিদ্ধ ছিল। মৎস্য সম্পদ উন্নয়ন ও সংরক্ষণ বিষয়ক জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়ন টাস্কফোর্স কমিটি সরকারি এ নিষেধাজ্ঞাটি কার্যকর করেন। এ সময় নদীতে অভিযান চালিয়ে জাল জব্দ করার পাশাপাশি দু’উপজেলায় কয়েকজন জেলেকে দ- দেওয়া হয়। একই সময় মা ইলিশ শিকারে বিরত রাখার জন্য নিবন্ধিত জেলেদেরকে সরকারিভাবে খাদ্য সহায়তা (ভিজিএফ) দেওয়া হয়েছে।
জেলেদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, এ নিষিদ্ধ সময়ে নৌকা মেরামত ও জাল বুনে বেকার সময় কাটিয়েছেন তারা। মধ্যরাতে এ নিষেধাজ্ঞা শেষে মাছ শিকারে নামতে তারা জাল আর নৌকা নিয়ে নদীতে যাওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন।
মৎস্য সম্পদ উন্নয়ন ও সংরক্ষণ বিষয়ক রামগতি উপজেলা টাস্কফোর্স কমিটির সদস্য সচিব ও সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. জসিম উদ্দিন জানান, ইলিশের প্রজনন অবাধ করার লক্ষে ঘোষণা করা নিষেধাজ্ঞা মধ্যরাতে শেষ হয়ে যাচ্ছে। এর পর থেকে মাছ শিকারে নদীতে যেতে আর কোনো বাধা নেই। তবে, জাটকা শিকার বন্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে ।
এদিকে কমলনগর উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) আবদুল কুদ্দুস বলেন, ‘নিষেধাজ্ঞার সময়ে জেলেরা অন্যান্য বছরের তুলনায় এবার মেঘনা নদীতে মাছধরা থেকে বিরত থাকায় ইলিশ উৎপাদন বাড়বে বলে আশা করা যাচ্ছে।’

নিউজটি শেয়ার করুন:


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2018 Priyo Upakul
Design & Developed BY N Host BD
error: Content is protected !!