বুধবার, ২৯ জুলাই ২০২০, ০১:০২ পূর্বাহ্ন

কমলনগরে তালিকাভুক্ত ৭৫ ভাগ মানুষ পাননি প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তার টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক
লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে তালিকাভুক্ত ৭৫ ভাগ মানুষ প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তার আড়াই হাজার টাকা এখনও পাননি। ঈদুল ফিতরের আগে এ সহায়তা কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হলেও তালিকাভুক্তরা ওই টাকা না পেয়ে জনপ্রতিনিধিদের কাছে বার বার ধরনা দিচ্ছেন। দীর্ঘদিনেও এ টাকা না পেয়ে হতাশ হয়ে পড়েছেন তারা। যে কারণে এ টাকা আদৌ পাবেন কি-না এনিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে অনেকের মাঝে।
জানা গেছে, করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঈদ উপহার’ হিসেবে ৫০ লাখ দরিদ্র পরিবারকে ২৫শ’ টাকা করে প্রদানের ঘোষণা দেওয়া হয়। এ কর্মসূচির আওতায় মেঘনা উপকূলীয় কমলনগর উপজেলার নয়টি ইউনিয়নের সাত হাজার ৫০০ দরিদ্র পরিবারের তালিকা প্রস্তুত করে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ করা হয়। মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে প্রত্যেকের নম্বরে ওই টাকা প্রদান করা কথা। কিন্তু বিভিন্ন ইউনিয়নের তালিকাভুক্তদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ঈদুল ফিতরের আগে এবং পরে সর্বোচ্চ ২৫ ভাগ মানুষ টাকা পেয়েছেন। বাকি তালিকাভুক্তরা এখন পর্যন্ত টাকা পাননি।
এদিকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার চরকালকিনি ইউনিয়নের ৭৫০, সাহেবেরহাটের ৫৫৮, চরলরেন্সের ৮৩৯, চরমার্টিনের ৮৫০, চরফলকনের ৭৯৮, পাটারীরহাটের ৭৭৩, হাজিরহাটের ৯৫০, চরকাদিরার এক হাজার ৪৩ ও তোরাবগঞ্জ ইউনিয়নের ৮৫০ জনসহ সাত হাজার ৫০০ জনের তালিকা মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ করা হয়েছে। তাদের মধ্যে কিছু সংখ্যক টাকা পেয়েছেন। মোবাইল ব্যাংকিংয়ের একাউন্ট সমস্যার কারণে তালিকাভুক্ত পাঁচ হাজার ৩৫৫ জনের মোবাইল নম্বর সংশোধন করে দেওয়ার জন্য মন্ত্রণালয় থেকে নিদের্শনা দেওয়া হয়েছে।
উপজেলার চরকালকিনি ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মেহেদী হাসান লিটন জানান, মানবিক সহায়তার জন্য তার ওয়ার্ডের ১০৮ জনের নাম তালিকাভুক্ত হয়। এদের মধ্যে থেকে ১০-১৫ জন টাকা পেলেও অন্যরা এখন পর্যন্ত পাননি। তবে তাদের মধ্যে থেকে ৮৮ জনের মোবাইল নম্বর সংশোধন করে দেওয়ার জন্য নির্দেশনা পেয়েছেন।
পাটারীরহাট এলাকার সাহাব উদ্দিন, চরফলকন এলাকার আক্তার হোসেন, হাজিরহাট এলাকার আনোয়ার হোসেন ও চরকালকিনি এলাকার আব্দুল হাইসহ তালিকাভুক্ত একাধিক ব্যক্তি অভিযোগ করেন, এখনও তাদের মোবাইলে প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তার টাকা পৌঁছেনি। দীর্ঘদিনেও এ টাকা না পাওয়ায় আদৌ টাকা পাবে কি-না তা নিয়ে তাদের মাঝে সংশয়ের সৃষ্টি হয়েছে।
সাহেবেরহাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আবুল খায়ের জানান, মানবিক সহায়তার জন্য তার ইউনিয়নের ৬৪৭ জনের তালিকা করা হয়েছে। এর মধ্যে টাকা পেয়েছেন ৭৫-৮০ জন। বাকীরা এখনও টাকা হাতে পায়নি।
তিনি বলেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে এ সহায়তা বিতরণ করা হলে তালিকাভুক্তরা সহজেই টাকা হাতে পেত।
পাটারীরহাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট একেএম নুরুল আমিন রাজু জানান, তার ইউনিয়নের তালিকাভুক্ত ৭৭৩ জন দরিদ্র মানুষের মধ্যে ৬৬৪ জনই টাকা পাননি।
চরফলকন ইউনিয়নের পরিষদের চেয়ারম্যান হাজি হারুনুর রশিদ বলেন, যেভাবে খবর পাচ্ছি তাতে মনে হয় ২০-২৫ ভাগ মানুষ টাকা পেয়েছেন। বাকিরা কবে পাবেন নিশ্চিত করে কিছুই বলা যাচ্ছে না।
তবে মানবিক সহায়তা কর্মসূচির উপজেলা কমিটির সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মোবারক হোসেন জানান, তালিকাভুক্তরা নিজের মোবাইল নম্বর না থাকায় অন্যের মোবাইল নম্বর দেওয়ায় জটিলতা দেখা দিয়েছে। এ জটিলতা নিরসনে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় থেকে মোবাইল নম্বর সংশোধন করার নিদের্শনা দেওয়া হয়েছে।
তিনি বলেন, সংশোধিত তালিকা দ্রুত পাঠিয়ে দেওয়া হবে। পর্যায়ক্রমে তালিকাভুক্ত সবাই টাকা পেয়ে যাবেন। এ নিয়ে হতাশ হওয়ার কোনো কারণ নেই।

নিউজটি শেয়ার করুন:


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2018 Priyo Upakul
Design & Developed BY N Host BD
error: Content is protected !!